bdstall.com

ওয়াটার হিটারের ধরন

এই শীতে প্রায় সকলেই ঠাণ্ডা পানির আতঙ্কে থাকেন। এমনকি ঠাণ্ডা পানিতে হাত ধুতে গেলেও ভয়ে মন কাঁপে। গোসল করার গরম পানিতো লাগবেই। কিন্তু প্রতিবার চুলোয় পানি গরম করাটাও একটা বিরক্তিকর কাজ। এর সমাধান একমাত্র ওয়াটার হিটার। যা আপনার বাসার পানির লাইনে গরম পানি সাপ্লাই দিতে পারে।



সাধারণত তিন ধরণের ওয়াটার হিটার পাওয়া যায়ঃ

 

১। ইলেকট্রিক ওয়াটার হিটার।

২। গ্যাস / প্রপেইন ওয়াটার হিটার।

৩। হিট পাম্প / হাইব্রিড ওয়াটার হিটার।

 

 

ইলেকট্রিক ওয়াটার হিটারঃ এই ওয়াটার হিটারগুলো অন্যান্য হিটারের তুলনায় কম ব্যায়বহুল। এই হিটারগুলোতে মাত্র একটি কিংবা দুটি যন্ত্রাংশ ব্যবহার করা হয় পানিকে গরম করার জন্য। এগুলোতে ২৮ থেকে ১০০ গ্যালন কিংবা তার বেশি পানি ধারন ক্ষমতা রয়েছে।

 

 

গ্যাস / প্রপেইন ওয়াটার হিটারঃ এই ওয়াটার হিটারগুলো ইলেকট্রিক ওয়াটার হিটার থেকে আরও ব্যায়বহুল। এগুলো একটি বার্নার ব্যবহার করে পানি গরম করে। এই হিটারগুলোর চারপাশে পর্যাপ্ত বাতাস চলাচলের ব্যবস্থা থাকতে হয়। গ্যাস / প্রপেইন ওয়াটার হিটার ইলেকট্রিক হিটার থেকে কম শক্তি খরচ করে। এগুলোতে সাধারণত ৩০ থেকে ১০০ গ্যালন পানি ধারন ক্ষমতা থাকে।

 

 

হিট পাম্প / হাইব্রিড ওয়াটার হিটারঃ এই হিটারগুলো বাতাস থেকে শক্তি গ্রহণ করে পানি গরম করার জন্য এবং অন্যান্য হিটার থেকেও সবচেয়ে ব্যায়বহুল। এগুলো আকারেও ইলেকট্রিক হিটার থেকে বড় হয়। এদের পানি ধারন ক্ষমতা ৫০ থেকে ৮০ গ্যালন।

 

 

আকারেও ওয়াটার হিটারগুলোর বিভিন্ন রকম ভিন্নতা রয়েছে। 

 

 

স্টোরেজ ট্যাঙ্কঃ এই ওয়াটার হিটারগুলোর প্রচলনই সবচেয়ে বেশি। এই হিটারগুলোতে একটি উত্তপ্ত ট্যাঙ্ক থাকে যেখানে পানি গরম হয় এবং জমা থাকে। যখন পানির প্রয়োজন হয় সেখান থেকেই হিটার পানি সাপ্লাই দেয়। 

 

 

ট্যাঙ্কলেস হিটারঃ এই হিটারগুলো গরম পানি জমা করে রাখে না। এগুলোর মধ্যে কিছু কয়েল থাকে এবং পানি এই কয়েলগুলোর ভিতর দিয়ে যাওয়ার সময়ই গরম হয়ে যায়। 

 

 

ইউটিলিটি হিটারঃ এই হিটারগুলো সাধারণত ছোট দোকান কিংবা বাসার নিচের গ্যারেজের জন্য উপযুক্ত। 

 

 

বিভিন্ন ধরণের ওয়াটার হিটারের মূল্য দেখুন এখানে