bdstall.com

গ্রাফিক্স ট্যাবলেট

৯৮টি পণ্য
৳ ৩৬,৪৯৯
২২ ঘণ্টা আগে
৳ ৯,৯৯৯
২২ ঘণ্টা আগে
৳ ১১,৯৯৯
২৩ ঘণ্টা আগে
৳ ১৫,৫০০
২২ ঘণ্টা আগে
৳ ২৪,৫০০
২২ ঘণ্টা আগে
৳ ৩,৭০০
২৩ ঘণ্টা আগে
৳ ২৯,৫০০
২২ ঘণ্টা আগে
৳ ৫৪,৫০০
২৩ ঘণ্টা আগে
৳ ৩৫,০০০
২২ ঘণ্টা আগে
৳ ৩৫,৫০০
২২ ঘণ্টা আগে

বাংলাদেশের শীর্ষ গ্রাফিক্স ট্যাবলেট এর মূল্য তালিকা

January, 2021 এর সেরা গ্রাফিক্স ট্যাবলেট সর্বশেষ দাম
Huion A2 LED Light Pad 26.8" Drawing Tracing Stencil Board ৳ ১৫,০০০
Huion New 1060 Plus 5080 LPI Graphic Drawing Pen Tablet ৳ ১২,০০০
Huion P68 Digital Graphics Replacement Tablet Pen ৳ ৩,৫০০
Wacom One DTC133 Digital Drawing Pen Tablet ৳ ৩৬,৪৯৯
Veikk A30 Digital Graphics Drawing Tablet ৳ ৯,৯৯৯
Huion Inspiroy Ink H320M Dual Purpose Drawing Tablet ৳ ৬,৯৯৯
Huion Inspiroy Q11K V2 Wireless Drawing Tablet ৳ ১১,৯৯৯
Wacom CDS-600C Bamboo Spark Snap-Fit Cover Drawing Pad ৳ ১৫,৫০০
Parblo A610 Pro Drawing Tablet ৳ ১৫,৫০০
Wacom PTH-460 Intuos Pro Small Graphics Tablet ৳ ২৪,৫০০

গ্রাফিক্স ট্যাবলেট কি?

গ্রাফিক্স ট্যাবলেট হল একটি হার্ডওয়্যার কম্পিউটার ইনপুট ডিভাইস যা দিয়ে ব্যবহারকারি ছবি আকা, গ্রাফিক্স তৈরি করা এবং এনিমেশনের মত জটিল কাজ খুব সহজেই করা যায়।

গ্রাফিক্স ট্যাবলেট এবং ড্রয়িং প্যাড এর মধ্যে পার্থক্য কি?

দুটিই ভাল শুধুমাত্র ড্রয়িং প্যাড এবং গ্রাফিক ট্যাবলেটের মধ্যে পার্থক্য হল ড্রয়িং প্যাডে আঁকা যায় এমন স্ক্রিন রয়েছে। অন্যদিকে গ্রাফিক ট্যাবলেটগুলি চালানোর জন্য একটি কম্পিউটারের প্রয়োজন হয়। যখন গ্রাফিক ট্যাবলেটে আঁকা হয় কম্পিউটারের মনিটরে তখন তা প্রদর্শন করে। বাংলাদেশে গ্রাফিক্স ট্যাবলেট এবং অঙ্কন প্যাড উভয়ই গ্রাফিক্স ট্যাবলেট হিসাবে পরিচিত।

ট্যাবলেট কেনার আগে কী কী বৈশিষ্ট্য দেখতে হবে?

এক্সপ্রেস কীঃ বর্তমানে বেশির ভাগ গ্রাফিক্স ট্যাবলেটে এক্সপ্রেস নামক এক ধরনের বাটন থাকে। এই এক্সপ্রেস বাটন গুলোকে কাস্টোমাইজ করে নিজের ইচ্ছেমত ব্যবহার করা যায়। দ্রুত কাজ করার জন্য বা কাজের গতি বৃদ্ধি করার জন্য এক্সপ্রেস কী বিশিষ্ট গ্রাফিক্স ট্যাবলেট কেনা ভালো।

স্টাইলাসের নিব বা সাইড সুইচঃ এক্সপ্রেস কী এর মতো গ্রফিক্স ট্যাবলেটে সব স্টাইলাসের পাশেই দুটি বাটন দেয়া থাকে যা ডিফল্টভাবে মাউসের ডাবল-ক্লিক করে বা রাইট বাটনে ক্লিক করে নির্ধারণ করা হয়। বর্তমানে কিছু ট্যাবলেট আছে যেগুলোতে স্টাইলাসের সাইড বাটন গুলোকেও কাস্টোমাইজ করা যায়। কেনার আগে যে সমস্ত ট্যাবলেটে কাস্টোমাইজবল স্টাইলাস সাইড বাটনের সুবিধা আছে সেগুলো দেখে কেনাই শ্রেয়।

টাচ রিংঃ গ্রাফিক্স ট্যাবলেট সুবিধামতো ব্যবহার করার জন্য টাচ রিং থাকা আবশ্যক। কিছু কিছু ব্র্যান্ডে যেমন ওয়াকম, ইন্টাওস ইত্যাদি এধরনের ট্যাবলেটগুলোতে টাচ রিং ফিচারটি আছে। রিং টাচ সেন্সেটিভ মূলত স্ক্রল অথবা জুম, ব্রাশের আকার পরিবর্তন ছাড়াও বিভিন্ন কাজের জন্য কাস্টোমাইজ করা যায়।

প্রেশার লেভেলঃ প্রেশার লেভেল গ্রাফিক্স ট্যাবলেটের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। এই প্রেশারের উপর নির্ভর করবে গ্রাফিক্সের আর্ট চিকন হবে নাকি মোটা হবে। যত বেশি প্রেশার দিয়ে প্রেস করা হবে ততই গাড় এবং মোটা আউটপুট পাওয়া যাবে ঠিক একই ভাবে যত হালকা প্রেশার দেওয়া হবে  ততই হালকা চিকন আউটপুট পাওয়া যাবে। প্রেশার প্রয়গের কিছু লেভেল রয়েছে তা হ’ল ২৫৬, ৫১২, ১০২৪ এবং ২০৪৮। এই সংখ্যাগুলো মূলত স্টাইলাসের সেন্সেটিভিটি লেভেল রেফার করতে অনেকটা সাহায্য করে থাকে।

ইরেজারঃ পেন্সিল দিয়ে কাগজের উপরের চিত্র বা পেন্সিলের দাগ মুছতে যেরকম ইরেজার ব্যবহার করে সহজেই মুছে ফেলা যায় ঠিক একই ভাবে গ্রাফিক্স ট্যাবলেটের চিত্র বা দাগ মুছতে একটি ডিজিটাল টাচ-সেনসিটিভ ইরেজার ব্যবহার করা হয়।

জনপ্রিয় ব্র্যান্ড কী?

আপনি যদি সস্তা ট্যাবলেট কিনতে চান তবে হিউয়ান ট্যাবলেট কিনুন। যদিও হিউয়ান সস্তা তবে এটি প্রাথমিক বা মাঝে মাঝে ব্যবহারকারীদের জন্য ভাল। ওয়াকমের ড্রয়িং ট্যাবলেট প্রফেশনালদের কাছে বেশ জনপ্রিয় কারন এই ট্যাবলেটগুলিতে উচ্চমানের ফিচার রয়েছে। অন্যান্য ব্র্যান্ডগুলি যেমন এক্সপি-পেন, ভিক্ক বাংলাদেশে পাওয়া যায়।