bdstall.com

কেসিং এর দাম ২০২৪ - পিসি কেস, গেমিং, আরজিবি

আইটেম ১-৪০ এর ৫০

কম্পিউটার কেসিং কেনাকাটা

বাংলাদেশে কম্পিউটার ব্যবহারকারীর সংখ্যা অনেক। কম্পিউটারের সকল অভন্তরীন ডিভাইস যে বক্সে রাখা হয় সেটি কেসিং নামে বাংলাদেশে পরিচিত। কেননা এই কেসিং-এর মধ্যেই থাকে কম্পিউটারের মাদারবোর্ড, পাওয়ার সাপ্লাইয়ার, ডিস্ক ড্রাইভ, কুলিং সিস্টেম ইত্যাদি। বাংলাদেশে বিভিন্ন ধরণের পিসি কেসিং পাওয়া যায় এবং এগুলো সাধারণত এটিএক্স স্ট্যান্ডার্ড সমর্থন করে ফলে এগুলো বিডিতে এটিএক্স কেসিং নাম পরিচিত।

বিডিতে কেসিং-এর দাম কত?

বিডিতে কেসিং এর দাম সাধারণত ৯৫০ টাকা থেকে শুরু, যা এটিএক্স থার্মাল কেসিং এবং একটি কুলিং ফ্যান যুক্ত সাধারণ মানের কেসিং। এই ধরণের কেসিং এ অতিরিক্ত ফ্যান সংযোজন, এক্সপানশান স্লট, অডিও / মাইক্রোফোন পোর্ট আছে। বিডিতে কেসিং এর দাম মূলত বডি মেটেরিয়াল, ডিজাইন, থার্মাল সিস্টেম ও পাওয়ার সাপ্লাই, আরজিবি লাইটিং ফ্যাসিলিটি, এবং অন্যান্য ফিচার সমূহের উপর নির্ভর করে পরিবর্তিত হয়ে থাকে। তাছাড়া, পিসি কেসিং কেনার ক্ষেত্রে বাজেটের পাশাপাশি কম্পিউটার কনফিগারেশনের উপর গুরুত্ব দেওয়া উচিত।

আরজিবি কেসিং এর দাম

বিডিতে সাধারণ আরজিবি লাইটিং কেসিং এর দাম ১,৪০০ টাকা থেকে শুরু যার মধ্যে ১-৩টি  কুলিং ফ্যান এবং ফ্রন্ট প্যানেল আরজিবি লাইটিং যুক্ত রয়েছে যা সহজে অনবোর্ড কন্ট্রোল বা মাদারবোর্ড সিঙ্কের মাধ্যমে কালার কাস্টমাইজ করা যায়। আরজিবি কেসিং এর দাম সাধারণত ব্র্যান্ড, মডেল, কুলিং ফ্যান সংখ্যা, কালার ফ্যাসিলিটি এবং অন্যান্য ফিচার সমূহের উপর নির্ভর করে পরিবর্তিত হয়ে থাকে। ৩-৫টি কুলিং ফ্যান সহ আরজিবি লাইটিং যুক্ত কেসিং ২,২০০ টাকা থেকে ৩,০০০ টাকা বাজেটের মধ্যে পাওয়া যায়। এছাড়াও,  উন্নত আরজিবি লাইটিং কিট, টেম্পারড গ্লাস প্যানেল এবং গুনমান সম্পন্ন লাইটিং, ফ্যান কন্ট্রোল ইত্যাদির সমন্বয়ে তৈরি প্রিমিয়াম কোয়ালিটির আরজিবি কেসিং এর দাম তুলনামূলকভাবে কিছুটা বেশি হয়ে থাকে।

গেমিং কেসিং এর দাম 

বিডিতে গেমিং কেসিং এর দাম ২৮০০ টাকা থেকে শুরু, যা সাধারণত ১-২ টি কুলিং ফ্যানের সমন্বয়ে তৈরি মিনি টাওয়ার কেসিং যা স্ট্যান্ডার্ড গেমিংয়ের ক্ষেত্রে ভালো তাপীয় পারফরম্যান্স প্রদান করে।  গেমিং কেসিং এর দাম সাধারণত ব্র্যান্ড, মডেল, কুলিং ফ্যান সংখ্যা, কালার, সাইড প্যানেল, পাওয়ার সাপ্লাই এবং অন্যান্য ফিচার সমূহের উপর নির্ভর করে পরিবর্তিত হয়ে থাকে। ৩-৫টি কুলিং ফ্যান, ডাস্ট ফিল্টার, ডেডিকেটেড এয়ারফ্লো চ্যানেল এবং জিপিইউ কুলার যুক্ত গেমিং কেসিং ৩,৫০০ টাকা থেকে ৫,০০০ টাকা বাজেটের মধ্যে পাওয়া যায়। এছাড়াও, উচ্চ মানের কুলিং ফ্যাসিলিটি, ক্যাবল ম্যানেজম্যান্ট, হাই-পারফরম্যান্স থার্মাল ডিজাইন এবং টেম্পারড গ্লাস যুক্ত আকর্ষণীয় ডিজাইনের গেমিং কেসিং এর দাম তুলনামূলক ভাবে বেশি হয়ে থাকে।

কম্পিউটার কেসিং কেনার আগে কি কি বিষয় জানা আবশ্যক?

পিসির জন্য কেসিং অনেক গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। নিচে কম্পিউটার কেসিং কেনার আগে যা যা জানা দরকার সেগুলো সম্পর্কে আলোচনা করা হলোঃ

১। কম্পিউটার কেসিং কেনার আগে সর্বপ্রথম যে বিষয় মাথায় রাখতে হবে সেটি হলো কেসিংএর আকৃতি। যারা উচ্চ কনফিগারেশনের পিসি ব্যবহার করবেন তাদের জন্য পিসি কেস বড় এবং অধিক স্থান সমৃদ্ধ হওয়া উচিত। পিসি কেসিং-এর বাহ্যিক আকৃতির পাশাপাশি এর অভ্যন্তরীণ জায়গা কেমন সেটিও দেখতে হবে কারণ বাহ্যিক ভাবে কেসিং বড় কিন্তু ভিতরে জায়গা কম এমনটা হলে খুবই সমস্যা হবে। কেসিং যদি ছোট হয় তাহলে অনেক প্রয়োজনীয় জিনিস ফিট করবে না। পরে আলাদা ভাবে বড় কেসিং কেনা লাগবে। তাই শুরুতেই বড় কেসিং কেনা ভালো। তবে বর্তমানে বাংলাদেশে মিনি কেসিং পাওয়া যায় যেগুলো দেখতে সুন্দর এবং ভিতরে ভাল স্পেস আছে।

২। কম্পিউটার কেসিং-এর বডির উপাদান দেখা দরকার। কম্পিউটার কেস যদি ভালো উপাদান দিয়ে তৈরি না হয় তাহলে সেটি বেশি দিন টেকসই হবে না। তাই ভালো মানের একটি কেসিং কেনা বিশেষভাবে প্রয়োজন। আর সাধারণ এর উপর কম্পিউটার কেসিংএর দাম কিছুটা নির্ভর করে।

৩। বর্তমান বাংলাদেশের বাজারে অনেক আরজিবি লাইটিং কেসিং পাওয়া যায়। এই আরজিবি কেসিংগুলো এক অন্যরকম অনুভূতি এবং সৌন্দর্য বৃদ্ধি করতে কাজ করে। চমৎকার আরজিবি কম্পপিউটার কেসিংগুলো বাংলাদেশের মানুষের পছন্দের তালিকাতে শীর্ষে অবস্থান করছে। তাই আরজিবি কেসিং কিনতে পারেন।

৪। কেসিংএর মধ্যে কুলিং সিস্টেম একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। দীর্ঘক্ষণ চলার পরে কুলিং সিস্টেম  সিপিউ কেসিং গরম হয়ে যাওয়ার সমস্যাকে সমাধান করতে সাহায্য করে। কেসিং কেনার সময় দেখতে হবে কেসিং-এর ভিতর অন্তর্নির্মিত কোনো কুলিং সিস্টেম আছে নাকি এবং অতিরিক্ত আরও কুলিং সিস্টেম লাগানোর মতো জায়গা আছে কি না। তবে সর্বনিম্ন দুটি কুলিং ফ্যান হলে ভাল হয়।

৫। কেসিং কেনার সময় কি কি পোর্ট আছে সেদিকে লক্ষ্য রাখা বিশেষ ভাবে দরকার। কেসিং-এ সমস্ত প্রয়োজনীয় পোর্ট আছে কিনা তা পরীক্ষা না করে কেনার ফলে অনেক সময় অতিরিক্ত সুবিধা হারাতে হতে পারে পারে। তাই কেসিং কেনার আগে অবশ্যই এই পোর্টের দিকটি মাথায় রাখতে হবে।

৬। অনেক সময় পিসিতে কাজ করার ফলে কেসিং থেকে আওয়াজ আসে যা কাজের সময়ে অনেক বিরক্ত বোধ করায়। তাই কেসিংটি সাউন্ডপ্রুফ কি না এটা দেখাও একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়।

৭। কম্পিউটার কেসিং-এ যাতে কোন ধুলাবালি না ঢুকতে পারে সেদিকে দেখা দরকার। সাথে যদি ডাস্ট ফিল্টার থাকে তাহলে নিদৃস্ট সময় পর এটি পরিষ্কার করা যায়। তাহলে পিসি কেসিংএর ভিতরের সকল পার্টস ভাল থাকবে।

৮। যারা গেম খেলতে চান তারা গেমিং কেসিং কিনতে পারেন। এগুলোর পাওয়ার সাপ্লাই অনেক উন্নতমানের এবং কিছু কিছু ক্যাসিংয়ে আলাদা ওয়াটার কুলিং সিস্টেম আছে। বাংলাদেশে এখন অনেক গেমার তাই এর চাহিদা বেশি এবং গেমিং ক্যাসিংয়ের দাম বিডিতে বেশ কম।

৯। অনেক সিপিউ ক্যাসিংয়ে ট্রান্সপারেন্ট গ্লাস প্যানেল থাকে ফলে ভিতরের জিনিষ দেখা যায়। আর এগুলো টেম্পার্ড গ্লাস দিয়ে তৈরী বলে অনেক শক্ত। বাংলাদেশে এগুলো এখন অনেক জনপ্রিয়।

১০। বাংলাদেশে এখন উন্নমানের ব্র্যান্ড কিছু কেসিং পাওয়া যায় যেগুলোর মান অনেক ভাল এবং সাশ্রয়ী।

বাংলাদেশের সেরা কম্পিউটার কেসিং এর মূল্য তালিকা July, 2024

July, 2024-এর বাংলাদেশের সেরা কম্পিউটার কেসিং এর তালিকা দেওয়া হল।। বিডি স্টলের কম্পিউটার কেসিং ক্রেতাদের আগ্রহের ভিত্তিতে এই সেরা কম্পিউটার কেসিং এর তালিকা তৈরি করা হয়েছে।

কম্পিউটার কেসিং মডেল বাংলাদেশে দাম
OVO R-1701 Mini Tower Black Desktop Casing ৳ ১,১০০
Gigasonic Computer Casing ৳ ১,০০০
Value-Top V200 Micro ATX Casing ৳ ২,৪০০
OVO E335D Mid Tower RGB Gaming Casing ৳ ৩,১০০
OVO J618 W RGB Micro Mesh Gaming Casing ৳ ১,৬৫০
Revenger Bullet Micro ATX RGB Gaming Casing ৳ ২,২৫০
Aptech AP-305-A03 RGB Gaming Case ৳ ৩,৩৫০
OVO X10 Mid Tower ARGB Gaming Case ৳ ৩,১৯০
OVO 2804 ATX Gaming Casing ৳ ২,৩০০
OVO JX188-7W Mid Tower RGB Gaming Casing ৳ ৩,১০০