bdstall.com

এক্সিও গাড়ির দাম

আইটেম ১-২০ এর ৫৯

টয়োটা এক্সিও সিরিজের গাড়ি বর্তমানে বাংলাদেশে সেরা পছন্দের গাড়ির তালিকায় স্থান করে নিয়েছে এর কম দামের কারনে। বাংলাদেশের সর্বত্র এই গাড়ি গুলোকে দেখা যায়। খুব অল্প তেল খরচ করে সেরা মাইলেজ প্রদান এবং শক্তিশালী ইঞ্জিনের কারণে টয়োটা এক্সিও গাড়িগুলো বাংলাদেশের স্থানীয় এবং হাইওয়ে উভয় রাস্তার জন্য সেরা। এছাড়াও স্টালিশ লুকিং, লাইটিং, সেন্সর, অটো ট্রান্সমিশন গিয়ার, উন্নত মানের আরামদায়ক সিট, আর্মরেস্ট সুবিধা, চমৎকার ইন্টেরিয়র টয়োটা এক্সিও গাড়ি গুলোকে প্রিমিয়াম লুক দিয়ে থাকে।

টয়োটা এক্সিও কেন কিনবেন?

বাংলাদেশের বর্তমানে সেরা গাড়ির তালিকায় অবস্থানরত টয়োটা এক্সিও গাড়িতে বিভিন্ন রকমের ব্যতিক্রম সুবিধা পাওয়া যায়। ব্রেকিং সিস্টেম, স্পীড, স্মার্ট অটো ট্রান্সমিশন গিয়ার সিস্টেম টয়োটা এক্সিও গাড়িগুলোতে সংযুক্ত হয়ে আসছে অনেক আগে থেকেই তবে বর্তমানের মডেলগুলোতে এসব সুবিধা আরও উন্নত মানের হচ্ছে। টয়োটা এক্সিও গাড়িগুলোর চাকা অন্যান্য গাড়ি অপেক্ষা একটু বড় হয় এবং গাড়ির নিচের দিকে অনেক স্পেস রয়েছে ফলে উঁচু নিচু রাস্তা বা পাহাড়ি এলাকায় এই গাড়ি চলতে পারে কোনো ক্ষতি ছাড়াই।

বাংলাদেশে টয়োটা এক্সিও গাড়ির দাম কত?

বাংলাদেশে টয়োটা এক্সিও গাড়ির দাম অনেক সস্তা যেমন ২০১০ সালের মডেল টয়োটা এক্সিও গাড়ির দাম মাত্র ১২,৮৫,০০০ টাকা। ৫ সিটের এই গাড়িটির বডি স্টাইলকে সালুন বলা হয়। টয়োটা এক্সিও ২০১০ গাড়িটি সম্পূর্ণ অ্যান্টি থেফট সিকিউরিটি সিস্টেম দ্বারা গঠিত। হাইওয়ে রাস্তায় চলাচলের জন্য এতে ফগ লাইট সুবিধাও আছে। বাংলাদেশে বিভিন্ন মডেলের টয়োটা এক্সিও গাড়ি আছে যার দাম নির্ধারিত হয় মডেল, রেজিস্ট্রেশন সাল, ফুয়েল সিস্টেম, ইঞ্জিন ক্যাপাসিটি, ডিজাইন, কালার ও অন্যান্য আনুষাঙ্গিকের উপর ভিত্তি করে।

টয়োটা এক্সিও গাড়ির স্টিয়ারিং কেমন?

টয়োটা এক্সিও গাড়ির স্টিয়ারিং নিজের সুবিধা মতো কাস্টমাইজ করে নেয়া যায় অর্থাৎ ড্রাইভার নিজের সুবিধামত স্টিয়ারিংকে উপরে ওঠাতে ও নিচে নামাতে পারবে। অনেক গাড়িতে এই সুবিধাটি থাকে না ফলে চালকের অনেক সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়। এমতাবস্থায় অনেক দূর্ঘটনা ঘটে যাওার সম্ভাবনা অনেক বেশি থাকে কিন্তু টয়োটা এক্সিওতে স্টিয়ারিং সুবিধা মতো উঠানামা করা যায় বলে দুর্ঘটনার আশংকা অনেক কমে যায়।

টয়োটা এক্সিওর কি হাইব্রিড ভার্সন পাওয়া যায়?

বাংলাদেশে টয়োটা এক্সিওর হাইব্রিড মডেল পাওয়া যায় তবে দাম নন-হাইব্রিড থেকে একটু বেশি। এই এক্সিওর হাইব্রিড গাড়িগুলো খুব কম তেল খরচ করে অধিক মাইলেজ প্রদানে পারদর্শী আর এটি ব্যাটারির সাহয্যেও চলতে পারে। মূলত টয়োটা এক্সিও হাইব্রিড গাড়িগুলো দুইটি শক্তিতেই পরিচালিত হয় বলে এর পরিচালন খরচ অনেক কম। এটি জ্বালানী তেল পুড়িয়ে চলাচল করে এবং তেল অপচয় হলে সে অপচয় বৈদ্যুতিক শক্তিতে রূপান্তরিত হয়।

করলা গাড়ি ভাল নাকি এক্সিও গাড়ি?

টয়োটা করলার একটি উন্নত মডেল হচ্ছে এক্সিও গাড়ি। এটিতে আছে উন্নতমানের সিভিটি গিয়ার এবং আধুনিক সব ফ্যাসিলিটি।

টয়োটা এক্সিও গাড়িতে মাইলেজ কেমন পাওয়া যায়?

টয়োটা এক্সিও লোকাল রাস্তায় এর মাইলেজ পাওয়া যাবে ১০ থেকে ১২ কিলোমিটার এবং হাইওয়ে রাস্তায় মাইলেজ পাওয়া যাবে ১৫ থেকে ১৮ কিলোমিটার প্রতি লিটারে। তবে এর হাইব্রিড ভার্সন ২৩ থেকে ৩৩ কিলোমিটার প্রতি লিটারে যেতে পারে।

টয়োটা এক্সিও গাড়িতে স্পেস কেমন আছে?

টয়োটা এক্সিও গাড়িতে স্পেস যথেষ্ট পরিমাণে আছে। সামনের সিটে পা রাখার জন্য নিচের দিকে যথেষ্ট জায়গা আছে এবং পিছনের সিটে একটু কম জায়গা থাকলেও ৩ জন অনায়াসে বসতে পারে। এক্সিও গাড়িটির পিছনের ট্রাঙ্কে ৩টি লাগেজ রাখা যাবে। ফলে টয়োটা এক্সিও গাড়িত ভ্রমণের জন্য সেরা।

টয়োটা এক্সিও গাড়ির এসি কি রকম?

বর্তমানের টয়োটা এক্সিও গাড়ির এসি খুবই উন্নত মানের এবং এতে অক্সিজেনের মাত্রা অনেক বেশি থাকে বলে শ্বাসরোধ হয় না। এসি গুলো সম্পূর্ণ টাচ প্যানেলে নিয়ন্ত্রিত হয় টয়োটা এক্সিও গাড়িগুলোতে। অনেকেরই গাড়িতে উঠলে বমি হয় অথবা বমি হওয়ার আশংকা থাকে শুধুমাত্র এসির বাতাসে পর্যাপ্ত পরিমাণে অক্সিজেনের কমতি থাকার কারণে কিন্তু টয়োটা এক্সিও গাড়িতে এমনটি হয় না কারণ এটির এসির বাতাসে পর্যাপ্ত পরিমাণে অক্সিজেন থাকে তাই বমি হওয়ার আশংকাও থাকে না।

বাংলাদেশে টয়োটা এক্সিও গাড়ি গুলোর কোন মডেলগুলো সবেচেয়ে বেশি পাওয়া যায়?

বাংলাদেশে টয়োটা এক্সিও গাড়িগুলোর মডেল যা সবচেয়ে বেশি বাংলাদেশে পাওয়া যায় এগুলো হলোঃ

   • টয়োটা এক্সিও ২০১০
   • টয়োটা এক্সিও জি ২০১০
   • টয়োটা এক্সিও ২০১১
   • টয়োটা এক্সিও এক্স ২০১১
   • টয়োটা এক্সিও জি ২০১১
   • টয়োটা এক্সিও ২০১২
   • টয়োটা এক্সিও জি ২০১২
   • টয়োটা এক্সিও ২০১৩
   • টয়োটা এক্সিও ২০১৬
   • টয়োটা এক্সিও এক্স ২০১৬
   • টয়োটা এক্সিও ২০১৭
   • টয়োটা এক্সিও এক্স ২০১৭
   • টয়োটা এক্সিও জি ২০১৭

বাংলাদেশে কি কি রঙের টয়োটা এক্সিও গাড়ি পাওয়া যায়?

বাংলাদেশে কয়েক রকম রঙের টয়োটা এক্সিও গাড়ি পাওয়া যায়, এগুলো হলোঃ

   • সাদা
   • কালো
   • নীল
   • সিলভার

তবে এগুলো ছাড়াও লাল ও সবুজ রঙের টয়োটা এক্সিও গাড়ি পাওয়া যায় মাঝেমাঝে। কিন্তু উপরে উল্লেখিত টয়োটা এক্সিও গাড়ির রঙগুলো বেশি জনপ্রিয়।

বাংলাদেশের সেরা এক্সিও গাড়ি এর মূল্য তালিকা April, 2024

এক্সিও গাড়ি মডেল বাংলাদেশে দাম
Toyota Axio 2013 ৳ ১,৭৭০,০০০
Toyota Axio X Hybrid 2018 ৳ ২,১০০,০০০
Toyota Axio 2019 ৳ ২,৪৮০,০০০
Toyota Axio Hybrid X 4 Point ৳ ২,২১০,০০০
Toyota Axio X 2018 ৳ ২,৪০০,০০০
Toyota Axio Fielder 2014 ৳ ১,৭৮০,০০০
Toyota Axio 2010 Private Car ৳ ১,৪১০,০০০
Toyota Axio 2013 Silver ৳ ১,৮৯৫,০০০
Toyota Axio X HID LTD 2010 ৳ ১,৫৫০,০০০
Toyota Axio X 2013 ৳ ১,৭৩৫,০০০