bdstall.com

টয়োটা এলিয়ন এর দাম ২০২৪

আইটেম ১-২৩ এর ২৩

গাড়ি কেনাকাটা

বিশ্বব্যাপী খ্যাতি সম্পন্ন জাপানের টয়োটা কোম্পানির তৈরি সেডান গাড়ি হচ্ছে টয়োটা এলিয়ন গাড়ি। টয়োটা এলিয়ন গাড়ির মসৃণ বাহ্যিক লাইন, অ্যারোডাইনামিক আকৃতি এবং উন্নত ফিচার সমূহের সমন্বয়ে তৈরি, যা গ্রাহকদের মধ্যে খুব দ্রুত আবেদন সৃষ্টি করে। এছাড়াও, এলিয়ন গাড়ির অভ্যন্তর যথেষ্ট প্রশস্ত আসন, উন্নত ইনফোটেইনমেন্ট সিস্টেম এবং আধুনিক সুযোগ-সুবিধা দিয়ে ডিজাইন করা হয়েছে।  পাশাপাশি, এলিয়ন গাড়িতে এয়ারব্যাগ, অ্যান্টিলক ব্রেকিং সিস্টেম, ইলেকট্রনিক স্ট্যাবিলিটি কন্ট্রোল সহ অনেক নিরাপত্তা সুবিধা রয়েছে, যা ড্রাইভার এবং যাত্রী উভয়ের নিরাপত্তা প্রদান করে। দৈনন্দিন জীবনে আরামদায়ক ও নিরাপদ যাতায়াতের নিশ্চয়তা প্রদানের পাশাপাশি সাশ্রয়ী দাম হওয়ায়, বাংলাদেশে এলিয়ন গাড়ির চাহিদা অনেক।

টয়োটা এলিয়ন গাড়ির বিশেষত্ব কি?

ডিজাইনঃ টয়োটা এলিয়ন গাড়ি মার্জিত এবং সমসাময়িক ডিজাইনে তৈরি, যা অনায়সে গ্রাহকদের মধ্যে আকর্ষণ সৃষ্টি করে। এছাড়াও এলিয়ন গাড়ি সেডান ক্যাটাগরি, মসৃণ লাইন এবং অ্যারোডাইনামিক শেপ এ নিখুঁত ডিজাইনে তৈরি।

আরামদায়ক অভ্যন্তরঃ এলিয়ন গাড়ির অভ্যন্তর যথেষ্ট প্রশস্থ, ফলে যাত্রী বসার ক্ষেত্রে মাথা থেকে পা পর্যন্ত বিস্তৃত পরিসরে জায়গা পাওয়া যায়। ফলে, দীর্ঘসময় ভ্রমণে ড্রাইভার এবং যাত্রী উভয়ের জন্য আরামদায়ক পরিবেশ নিশ্চিত করে। তাছাড়া, এলিয়ন গাড়ির চেয়ার এরগোনোমিক্যালি ডিজাইনে তৈরি হওয়ায় স্বাচ্ছন্দ্যে বসা যায়।

উন্নত ইনফোটেইনমেন্ট সিস্টেমঃ ড্রাইভিং এ আকর্ষণীয় অভিজ্ঞতা প্রদানে এলিয়ন গাড়িতে উন্নত ইনফোটেইনমেন্ট সিস্টেম রয়েছে। যার ফলে স্মার্টফোন কিংবা অন্যান্য ডিভাইস সংযোগ করে যেকোনো অডিও শোনতে সহায়তা করার পাশাপাশি অন্যান্য প্রয়োজনীয় অ্যাপ সহজেই অ্যাক্সেস করা যায়।

কন্ট্রোল সিস্টেমঃ নিরাপদ ড্রাইভিং সুবিধা প্রদানে এলিয়ন গাড়িতে স্ব-নিয়ন্ত্রিত কন্ট্রোল সিস্টেম রয়েছে। এই সিস্টেমটির বিভিন্ন ফাংশন সহজে নেভিগেট করার জন্য সুসংগঠিত ড্যাশবোর্ড রয়েছে, যা ড্রাইভিং এ সামনের রাস্তা সহজে ফোকাস করতে সহায়তা করে।

ইঞ্জিন ভ্যারিয়েন্টঃ এলিয়ন গাড়িতে ১.৫ লিটার বা ২.০ লিটার স্পিরিটেড ইঞ্জিন ভ্যারিয়েন্ট রয়েছে। তবে, উভয় ধরণের ইঞ্জিনই অন রোড, অফ রোডে আকর্ষণীয় কর্মক্ষমতা এবং মসৃণ ড্রাইভিং অভিজ্ঞতা প্রদান করে।

সাসপেনশন সিস্টেমঃ এলিয়ন গাড়ি আরামদায়কভাবে ড্রাইভ করার জন্য কার্যকর সাসপেনশন সিস্টেম যুক্ত রয়েছে। যা সুনির্দিষ্ট স্টিয়ারিং, কার্যকর ব্রেকিং প্রদান করে ড্রাইভারকে আত্মবিশ্বাসী করার পাশাপাশি নিয়ন্ত্রিত ড্রাইভিং সুবিধা প্রদান করে।

নিরাপত্তা টেকনোলোজিঃ ড্রাইভিং এ যেকোনো ধরণের সংঘর্ষ এড়াতে এলিয়ন গাড়িতে উন্নত নিরাপত্তা টেকনোলোজি যুক্ত রয়েছে। এছাড়াও, অটোমেটিক ইমারজেন্সি ব্রেক, এডাপ্টিভ ক্রুইজ কন্ট্রোল, ল্যান পরিবর্তন এলার্ট সহ বিভিন্ন উন্নত টেকনোলোজি যুক্ত রয়েছে, যা ড্রাইভার এবং যাত্রীদের সম্ভাব্য দুর্ঘটনা থেকে নিরাপদ রাখে।

এয়ারব্যাগ সিস্টেমঃ এলিয়ন গাড়িতে স্ট্যাবিলিটি ও ট্র্যাকশন কন্ট্রোল এর পাশাপাশি উন্নত এয়ারব্যাগ সিস্টেম যুক্ত রয়েছে। ফলে, দুর্ঘটনার ক্ষেত্রে এলিয়ন গাড়ি ড্রাইভিং এ একাধিক সুরক্ষা স্তর প্রদান করে।

জ্বালানী দক্ষতাঃ বর্তমানে গাড়ি কেনার ক্ষেত্রে জ্বালানী সাশ্রয় ও কার্বন নিঃসরণ খুবই গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হিসেবে বিবেচনা করা হয়। টয়োটা এলিয়ন গাড়িতে উন্নত ভিভিটিআই টাইপের ইঞ্জিন ব্যবহারের পাশাপাশি যথেষ্ট জ্বালানী সাশ্রয়ী হয়ে থাকে। এলিয়ন গাড়িতে সাধারণত অক্টেন, সিএনজি গ্যাস ব্যবহার করা যায় এবং যথেষ্ট কম কার্বন নিঃসরণ করে।

টয়োটা এলিয়ন গাড়ির দাম কত?

বাংলাদেশে ব্যবহৃত এবং রিকন্ডিশন উভয় ধরনের টয়োটা এলিয়ন গাড়ি পাওয়া যায়। বর্তমানে বাংলাদেশে এলিয়ন গাড়ীর দাম ১,২৪০,০০০ টাকা থেকে শুরু যা ব্যবহৃত গাড়ি এবং ইঞ্জিন ক্যাপাসিটি ১৫০০ সিসি হয়ে থাকে। এছাড়াও, গাড়ির মডেল, ডিজাইন, ইঞ্জিন, অ্যাডাপ্টিভ ক্রুজ কন্ট্রোল, লেন চেঞ্জিং এলার্ট ও ব্যাক ক্যামেরা সহ অন্যান্য উন্নত প্রযুক্তি উপর ভিত্তি করে বাংলাদেশে টয়োটা এলিয়ন গাড়ির দামের পার্থক্য হয়ে থাকে। তবে, বাংলাদেশে সর্বশেষ মডেলের টয়োটা এলিয়ন গাড়ির দাম ২,৮৫০,০০০ টাকা থেকে শুরু।

এলিয়ন গাড়ি ব্যবহারে কেমন মাইলেজ পাওয়া যাবে?

এলিয়ন গাড়ির মাইলেজ সাধারণত গাড়ির মডেল, ফুয়েল টাইম, ইঞ্জিন ক্যাপাসিটি এবং ড্রাইভিং রোড ইত্যাদি বিষয়ের উপর নির্ভর করে পরিবর্তিত হয়ে থাকে। তবে, এলিয়ন গাড়ি শহরের রাস্তায় প্রতি লিটারে ১১ থেকে ১২ কিমি রাস্তা ড্রাইভ করা যায়। হাইওয়েতে প্রতি লিটারে টয়োটা এলিয়ন গাড়ি ১৩-১৪কিমি ড্রাইভ করা যায়।

বাংলাদেশে এলিয়ন এ১৫ গাড়ি কত টাকায় পাওয়া যায়?

টয়োটা এলিয়ন গাড়ি ২০০১ সাল থেকে শুরু করে এখন পর্যন্ত প্রায় চারটি জেনারেশনের গাড়ি বাজারে সরবারহ করছে। তবে, এসব জেনারেশনের মধ্যে এলিয়ন এ১৫ মডেলের গাড়িটি বাংলাদেশে ব্যাপক জনপ্রিয়। তাছাড়া, এলিয়ন এ১৫ মডেলের গাড়িটি বাংলাদেশে ১,২০০,০০০ টাকা থেকে ১,৮০০,০০০ টাকা বাজেটের মধ্যে পাওয়া যায়, যা ব্যবহৃত কন্ডিশনের হয়ে থাকে। তবে, এলিয়ন গাড়ির মডেল, মডেল সাল, বডি কন্ডিশন, রান টাইম ইত্যাদি বিষয়ের উপর নির্ভর করে দাম পরিবর্তিত হয়ে থাকে।

বাংলাদেশের সেরা এলিয়ন গাড়ি এর মূল্য তালিকা May, 2024

এলিয়ন গাড়ি মডেল বাংলাদেশে দাম
Toyota Allion 2008 ৳ ১,৯০০,০০০
Toyota Allion 2014 ৳ ২,৭৫০,০০০
Toyota Allion A 15 2011 ৳ ২,৩০০,০০০
Toyota Allion X 2007 ৳ ১,৬৫০,০০০
Toyota Allion 2007 ৳ ১,৭৪৫,০০০
Toyota Allion G 2019 ৳ ৪,০৫০,০০০
Toyota Allion Silver 2007 ৳ ১,৩৮০,০০০
Toyota Allion A15 2003 ৳ ১,২৫০,০০০
Toyota Allion A15 2007 ৳ ১,৫২০,০০০
Toyota Allion G plus 2014 ৳ ২,৬১০,০০০